সবে দিনটি শুরু হল, এবং আপনি আশা করছেন দিনটি হবে কর্মমুখর এবং জমে থাকা পুরোনো কাজগুলোও এগিয়ে রাখবেন। হয়তো ইতিমধ্যে নির্ধারণ করে ফেলেছেন কিভাবে এগোবেন।

কিন্তু, দেখা গেল, কাজে মনোনিবেশ করতে পারছেন না ঠিকমত, এইদিকে ঘড়ির কাটাকে থামানোও অসাধ্য। হয়তো ইমেইল বা ফেইসবুকের নোটিফিকেশনে সাড়া দিতে গিয়ে নিজের অজান্তেই পার করে ফেলেছেন অনেকটা সময়।

মনোসংযোগ বাড়ানোর একটি অসাধারণ উপায় - Bangalista

কোন কাজে আমরা কতক্ষণ মনোনিবেশ করতে পারি, তা নিয়ে নানা ধরণের গবেষণা আছে। বেশির ভাগ গবেষণায় দাবি করা হয় আমরা এক নাগারে ২০-২৫ মিনিট একটা কাজে মনোনিবেশ করতে পারি, যারা বেশি উচ্চাকাঙ্ক্ষী, তারা ৪৫ মিনিট পর্যন্ত কাজে তাদের মনোনিবেশ ধরে রাখতে পারে। আপনার জানতে হবে কোন সময়টি আপনার জন্য সঠিক, এবং সেই অনুপাতে কাজের সময় নির্ধারণ করতে হবে।

bad res পমোডরো টেকনিকঃ সময় ব্যবস্থাপনার একটি মজার পদ্ধতি

পমোডরো টেকনিক কাজে মনোনিবেশ ধরে রাখার একটি সহজ বুদ্ধি। ফ্র্যানসেস্কো সিরিলোর উদ্ভাবিত এই পদ্ধতির আওতায়, আপনি ২৫ মিনিট জন্য দৃঢ়চিত্তে কাজ করবেন এবং এরপর নিজেকে ৫ মিনিটের একটি বিরতি দিয়ে পুরস্কৃত করবেন। এই ২৫+৫ মিনিট সময়কে একটি ব্লক বলা হয়। যখন এই রুটিনের ৪টি ব্লকসফলভাবে কাজে ব্যয় করবেন, তখন আপনি নিজেকে একটি বড় বিরতি দিয়ে পুরস্কৃত করতে পারবেন। এই কৌশল ব্যবহার করা শুরু করলে আপনার কাজ করতে এতটাই সুবিধা হবে যে আপনি অবাক হয়ে যাবেন কত তাড়াতাড়ি ব্লকের সময় শেষ হয়ে যায়!
এমনও হতে পারে যে পরের দিকে আপনি ৫ মিনিটের বিরতি না নিয়ে, অন্য হালকা কাজ করছেন, যেমন ই-মেইল চেক করা বা ফেইসবুক চেক করা।
এই পদ্ধতি আপনার ব্রেইনকে স্বল্প সময়কালের জন্য মনোনিবেশে সাহায্য করে, সময়ের সাথে এটি আপনার অ্যাটেনশন স্প্যানকেও উন্নত করবে।
পমোডরো টেকনিক ব্যবহার করা ছাড়াও, কাজে কোন ধরনের ব্যাঘাত না ঘটার জন্য আপনি ফোন বা ই-মেইল নোটিফিকেশন ৩০-৪৫ মিনিটের জন্য বন্ধ রেখে কাজে মন দেওয়ার চর্চা করতে পারেন। ফোনে টাইমার অ্যাপ অন করে বা কাজের অগ্রগতি ট্র্যাক করতে সহায়ক অ্যাপ বা বিঘ্নরোধক অ্যাপ, যেমনঃ Timely, Toggl, Forest, Tomato Timer ইত্যাদি ব্যবহার করেও মনঃসংযোগের চর্চা করা যায়।

[thb_gap height=”50″]

Related Articles

[thb_gap height=”35″][thb_postcarousel style=”style3″ columns=”5″][thb_gap height=”50″][thb_instagram style=”style2″ columns=”5″ link=”true” column_padding=”false” low_padding=”false” number=”9″]